শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১

কোভিড-১৯: করোনাভাইরাসে মৃত্যু ও শনাক্ত বেড়েছে বাংলাদেশে

  •  
  •  
  •  
  •  

নিউজ ডেস্ক:

দেশে করোনা শনাক্তের ৪৫৯তম দিনে এসে আরও ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা গেল একমাসের মধ্যে সর্বোচ্চ মৃত্যু। এর আগে, গেল ৯ মে দেশে ৫৬ জনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১২ হাজার ৯১৩ জনে দাঁড়ালো। মঙ্গলবার (৮ জুন) করোনা পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানান হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৯ হাজার ৫৫৬টি। আর দেশের মোট ৫১০টি ল্যাবে অ্যান্টিজেন টেস্টসহ ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ১৬৫টি। এর মধ্যে ২ হাজার ৩২২ জনের দেহে করোনার উপস্থিতি পাওয়া গেছে। যা গত ৪১ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক শনাক্ত।

২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় করোনা শনাক্তের হার ১২.১২ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬০ লাখ ৮৬ হাজার ২০৭টি। সে হিসেবে এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩.৪০ শতাংশ। এছাড়া শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১.৫৮ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৪৪ জনের মধ্যে ২৭ জন পুরুষ ও ১৭ জন নারী। এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করা ১২ হাজার ৯১৩ জনের মধ্যে ৯ হাজার ৩০২ জন পুরুষ ও ৩ হাজার ৬১১ জন নারী। আর গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরো ২ হাজার ৬২ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২.৬৪ শতাংশ। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৭ লাখ ৫৫ হাজার ৩০২ জন।

এদিকে, বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৭ কোটি ৪৪ লাখ ২৩ হাজার ছাড়িয়েছে। আর বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৭ লাখ ৫৩ হাজার ৩৭১ জনের। এছাড়া সারা বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থতার সংখ্যা ১৫ কোটি ৭৬ লাখ ৯৬ হাজার ৪১৩ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়া গেলেও বাংলাদেশে ভাইরাসটি শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। ওইদিন তিনজন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার কথা জানিয়েছিলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »

x