মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

সঞ্জয়লীলা বানসালির ছবিতে ১৯ বছর পর মাধুরী

  •  
  •  
  •  
  •  

বিনোদন ডেস্কঃ সঞ্জয়লীলা বানসালি তখন নতুন পরিচালক। দুএকটা ছবিতে নাম করেছেন। সালমান খান-ঐশরিয়া রাই জুটির ‘হাম দিল দে চুকে সনম’ সুপারহিট। সঞ্জয়ের পরবর্তী প্রজেক্ট শরৎচন্দ্রের কালজয়ী সৃষ্টি ‘দেবদাস’। এর আগে হিন্দি, কলকাতা ও বাংলাদেশে একাধিক দেবদাস হয়েছে। কিন্তু বানসালি চান নিজের মতো করে গল্পটি উপস্থাপন করতে। সালমান খানকে দেবদাস আর ঐশ্বরিয়াকে পার্বতী করবেন, আগেই ঠিক করে রেখেছিলেন। কিন্তু চন্দ্রমুখী হিসাবে যাকে ভাবছেন তাকে রাজী করানো এক কথায় অসম্ভব বলেই মনে করছিলেন পরিচালক। কারণ তিনি ছবির পাশ্বচরিত্র চাচ্ছিলেন তখনকার সুপারস্টার মাধুরী দীক্ষিতকে। চন্দ্রমুখীর সৌন্দর্য, নৃত্যপটীয়সী স্বভাব আর কামুকতা মেলে ধরতে মাধুরীকে ছাড়া আর কাউকে ভাবতেই পারছিলেন না। এরমধ্যে সালমান-ঐশ^রিয়ার সম্পর্কে অবনতির কারণে সালমানের জায়গায় শাহরুখ খান এসে গেল। কিন্তু মাধুরীকে তখনো প্রস্তাব দিতে সাহস পাচ্ছিলেন না সঞ্জয়। মাধুরীকে রাজী করাতে শরণাপন্ন হন তার দুই নাচের গুরু বিরজু মহারাজ আর সরোজ খানের। এবার মাধুরী আর যান কই, গুরুদের আদেশ বলে কথা। চন্দ্রমুখী করতে হলো তাকে। শুধু কী করলেন না, রীতিমতো বাজিমাত। দেবদাস, পার্বতী, চন্দ্রমুখী কারও চেয়ে কেউ কম না। মাধুরী এই ছবির জন্য ঢের পুরস্কারও পেলেন। ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল ২০০২ সালে। এরপর চলে গেছে ১৯ বছর। পরিচালক সঞ্জয়লীলা বানসালির ছবিতে আর দেখা মেলেনি মাধুরীর। তবে সুখবর এসে গেছে। ভারতীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, নেটফ্লিক্সের সঙ্গে মিলে ‘হীরা মান্ডি’ নির্মাণের পরিকল্পনা করেছেন সঞ্জয়লীলা বানসালি। সিরিজটিতে মুজরা করতে দেখা যাবে ‘চন্দ্রমুখী’কে। সঞ্জয়ের ছবি মানেই বিশাল ক্যানভাস, জমকালো সেট। সিরিজেও তার ব্যতিক্রম ঘটছে না। মুজরার পার্টটা সিরিজের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দৃশ্য। তাই মাধুরীকেই সবচেয়ে যোগ্য মনে করেছেন বানসালি। ‘দেবদাস’ পরিচালকের কাছ থেকে ১৯ বছর পর নতুন প্রস্তাব পেয়ে এককথায় রাজি বলিউডের ‘ধক ধক গার্ল’। জানা গেছে, সিরিজের মুজরার পার্টটির শ্যুটিং হবে টানা ১০ দিন। পর্দায় স্বল্প উপস্থিতি হলেও মাধুরীকে আকাশ ছোঁয়া পারিশ্রমিক দিচ্ছেন বানসালি। তবে টাকার অংকটা জানা যায়নি। সিরিজের প্রধান দুটি নারী চরিত্রে অভিনয় করছেন সোনাক্ষী সিনহা ও হুমা কুরেশি।

শেয়ার করুন »

লেখক সম্পর্কে »

মন্তব্য করুন »

x