হাড় ভালো রাখতে যে ৫ খাবার এড়িয়ে চলবেন


দৈনিক সিরাজগঞ্জ ডেস্ক প্রকাশের সময় : জুলাই ৫, ২০২৩, ৯:২৪ অপরাহ্ন /
হাড় ভালো রাখতে যে ৫ খাবার এড়িয়ে চলবেন

আপনার কি মাঝেমাঝেই হাড়ে ব্যথা হয়? ঘাড় বা হাঁটুতে খুব বেশি ব্যথা অনুভব করেন? তাহলে এটি হতে পারে দুর্বল হাড়ের লক্ষণ হতে পারে। এমন অবস্থায় বেশিরভাগ মানুষ পেইন কিলার খেয়ে ব্যথা কমানোর চেষ্টা করেন। তাতে সাময়িক স্বস্তি মিললেও ব্যথা আবার ফিরে আসে। নিশ্চয়ই ভাবছেন, এর কারণ কী হতে পারে? এর বেশ কয়েকটি কারণ থাকতে পারে। তবে অনেক সময় বেখেয়ালে আমরা এমন অনেক খাবার খেয়ে ফেলি যেগুলো হাড়ের জন্য ক্ষতিকর। হাড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য আপনাকে কিছু খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক তেমনই ৫ খাবার সম্পর্কে-

ফ্রেঞ্চ ফ্রাই

ফ্রেঞ্চ ফ্রাই খেতে না ভালোবাসে? এই খাবার সুস্বাদু তাতে সন্দেহ নেই। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে, এতে উচ্চ পরিমাণে সোডিয়াম থাকে, যা আমাদের হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। অত্যধিক সোডিয়াম গ্রহণ করলে তা আমাদের হাড়ের ক্যালসিয়াম উপাদানকে দুর্বল করে দেয়। হাড় ভালো রাখার জন্য আপনাকে অবশ্যই অন্যান্য নোনতা খাবার যেমন চিপস, বার্গার, পিজা বা অন্য ফাস্টফুড এড়িয়ে চলতে হবে।

কার্বনেটেড পানীয়

কার্বনেটেড পানীয় পানে আপনি সাময়িক তৃপ্তি পাবেন ঠিকই তবে আপনি যদি হাড় সুস্থ রাখতে চান তাহলে এ ধরনের পানীয়কে বিদায় জানানোর সময় এসেছে। এ ধরনের পানীয়তে প্রচুর চিনি থাকে এবং তা হাড়ের বিকাশে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে বা ক্যালসিয়ামের ক্ষতি করতে পারে। কার্বনেটেড পানীয়তে চুমুক দিলে তা আপনার মুখের স্বাস্থ্যের ওপরও প্রভাব ফেলবে, যার ফলে দাঁত সংক্রান্ত বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেবে।

ক্যাফেইন

আমাদের প্রতিদিনের পানীয়র তালিকায় চা কিংবা কফি থাকেই। তবে তা পান করতে হবে পরিমিত। আপনার যদি অতিরিক্ত চা কিংবা কফি পানের অভ্যাস থাকে তবে তা দ্রুত বাদ দিন। কারণ এই অভ্যাস আপনার হাড়কে ‍দুর্বল করে দিতে পারে। বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে যে, অত্যধিক ক্যাফেইন গ্রহণ হাড়ের ঘনত্বকে প্রভাবিত করতে পারে। সুতরাং, যদি আপনার হাড় সুস্থ রাখতে চান তবে অবশ্যই ক্যাফেইন গ্রহণের পরিমাণ কমাতে হবে।

প্রাণিজ প্রোটিন

অবাক করা হলেও সত্যি যে অত্যধিক প্রাণিজ প্রোটিন খাওয়া হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে। প্রাণিজ প্রোটিন যেমন দুগ্ধজাত পণ্য, মাছ এবং মুরগি প্রোটিনের চমৎকার উৎস। কিন্তু সংযম এখানে মুখ্য, কারণ অতিরিক্ত কিছু আমাদের জন্য কখনোই ভালো ছিল না। অত্যধিক প্রোটিন গ্রহণের ফলে মূত্রে খনিজ পদার্থের ক্ষতি হতে পারে।

চকোলেট এবং ক্যান্ডি

চকোলেট এবং ক্যান্ডি আমাদের হাড়ের জন্য বেশ ক্ষতিকারক। যেহেতু এগুলোতে চিনির পরিমাণ বেশি থাকে, তাই তারা স্বাভাবিকভাবেই আমাদের রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বাড়ায়। এটি সরাসরি আমাদের হাড়ের গুণমান এবং ঘনত্বকে প্রভাবিত করে। এগুলো শরীরকে ক্যালসিয়াম শোষণ থেকেও বাধা দিতে পারে। চকোলেট কিংবা ক্যান্ডি ছাড়াও আইসক্রিম, কেক, ব্রাউনিজ বা ডেজার্ট ইত্যাদি খাবারও এড়িয়ে চলতে হবে বা পরিমিত খেতে হবে।